দারিদ্র মোচন ও কৃষির উন্নয়ন প্রসঙ্গে স্বামী বিবেকানন্দ

Ujjal Halder | Assistant Professor, Department of Philosophy, Ramananda Centenary College
email:ujjalrcc@gmail.com

সাধারণতঃ স্বামী বিবেকানন্দকে একজন মহান ধর্মাচার্য রূপে শ্রদ্ধা করা হয়। হিন্দু ধর্ম ও দর্শন চর্চার ক্ষেত্রে তিনি বাস্তবিকই এক সুনির্দিষ্ট অবদান রেখে গেছেন । বিশ্ববাসী হিন্দু ধর্ম ও দর্শন সম্বন্ধে ব্যাপকভাবে জানতে পেরেছে এবং হিন্দু ধর্ম ও দর্শনের মর্যাদা দিতে শিখেছে তাঁরই প্রয়াসে । তাঁর যে সকল বেদান্তের তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক রচনা আছে তা আজও সমগ্র পথিবীর হাজার হাজার তত্ত্বজিজ্ঞাসু ব্যক্তিকে অনুপ্রাণীত করে থাকে । কিন্তু এটাও সর্বজনবিদিত যে, ধর্মীয়, তাত্ত্বিক এবং ধর্মাচার্য অপেক্ষা তাঁর বড় পরিচয় – তিনি একজন মানব প্রেমিক, মানবসেবায় নিবেদিত প্রাণপুরুষ । একজন মানব প্রেমিক হিসাবে তাই দেশের মানুষের যে অর্থনৈতিক দুর্দশা , দু-বেলা দু-মুঠো অন্নের জন্য দেশের মানুষের হাহাকার তাঁকে ব্যথিত করেতুলেছিল । স্বামীজী যখন বিশ্বপরিক্রমা করেন তখন তিনি সর্বত্র গণজীবনের সংস্পর্শে আসেন এবং বিভিন্ন দেশের বিচিত্র মানবগোষ্ঠীর বিভিন্ন বিশ্বাস , ধর্ম , নৈতিক আচরণ , নিয়মশৃঙ্খলা , বিধিনিয়ম , প্রথা-প্রতিষ্ঠান , আর্থিক সংগঠন প্রভৃতি সব দিক সযত্নে আয়ত্ত করেছিলেন, অগণিত সাধারণ মানুষ – শ্রমিক, কৃষক, শিল্পী প্রভৃতি সকলের আশা-আকাঙ্খা, সমস্যাদির সঙ্গে পরিচিত হয়েছিলেন । তাঁর এই সমাজ দর্শনের মূলে আছে প্রাচীন বেদান্ত দর্শন , এখানে দেখা যায় বেদান্ত আর মোক্ষশাস্র হয়ে নেই , এর গভীর তাৎপর্য উদঘাটনে একটি অগ্নিগর্ভ বিপ্লব-দর্শন হয়ে উঠেছে। শ্রীরামকৃষ্ণের বেদান্তভিত্তিক ‘জীবই শিব’ বাণীর পরিপেক্ষিতেই এটা ঘটেছে। স্বামী বিবেকানন্দের যে সমাজদর্শন মূলতঃ এই বিপ্লব বা রূপান্তরের দর্শন ।

Read more…

Leave a Comment

Publisher: Dr Ramsankar Pradhan,
Teacher-in-Charge
Ramananda Centenary College, Laulara, Purulia,
West Bengal -723151
Designed & Developed by technoservices